রবিবার , ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২২ | ২৮শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঠাকুরগাঁওয়ে হাটবাজার গুলোতে লাগামহীন নিত্যপণ্যের দাম”

প্রতিবেদক
ঠাকুরাগাঁও সংবাদ
ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২২ ১০:২৯ অপরাহ্ণ

মোঃ মজিবর রহমান শেখ,,
ঠাকুরগাঁও জেলার হাটবাজার গুলোতে নিত্যপ্রয়োজনীয় চাল, ডাল, পেঁয়াজ ও ভোজ্য-তেল সহ বিভিন্ন পণ্যের দাম যেভাবে বাড়ছে, তা নিয়ে নিম্ন ও মধ্য আয়ের মানুষ ক্ষুব্ধ। বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দামের লাগামহীন ঊর্ধ্বগতিতে চরম সংকটে নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্তরা। দ্রব্যমূল্যের ক্রম ঊর্ধ্বগতিকে কেউ কেউ দাবানলের সঙ্গে তুলনা করছেন। আগে যেখানে প্রচলিত বাক্য ছিল ‘নিত্যপণ্যের বাজারে আগুণ’। চাল-ডাল-তেল থেকে শুরু করে অতি প্রয়োজনীয় প্রায় সব পণ্যের দামের একই অবস্থা। নিত্যপণ্যের দামের এমন ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতার জন্য করোনা মহামারিতে উৎপাদন কমে যাওয়া, বিশ্ববাজারে অস্থিরতা, অতিরিক্ত আমদানি নির্ভরতা, সরকারের আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত ও সুযোগসন্ধানী ব্যবসায়ীদের কারসাজিকে দায়ী করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা। আবার কেউ কেউ অভ্যন্তরীণ বাজারের সুশাসনের অভাবকেও দায়ী করছেন। ২৭ রবিবার সরেজমিনে ঠাকুরগাঁও জেলার বিভিন্ন কাঁচা বাজার ঘুরে দেখা যায়- যেমন, রুহিয়া রামনাথ হাট,আখানগর হাট ঢোলার হাট, বালিয়াডাঙ্গী লাহিড়ী হাট, রাণীশংকৈল নেকমরদ হাট, হরিপুর যাদুরাণী হাট ঠাকুরগাঁও জেলার সদর উপজেলা শিবগঞ্জ হাট, খোচাবাড়ি হাট, পীরগঞ্জ উপজেলা নসিবগঞ্জ হাট বরহাট হাট বৈরচুনা হাট পীরগঞ্জ কলেজ বাজারসহ কাতিহাড় হাটে আলু, টমেটো, গোল বেগুন, লম্বা বেগুন, করলা, পটল, লাউ, মটরশুঁটি, কাঁচা পেঁপে, শসা, গাজর, ফুলকপি, পাতাকপি, সজনে, বরবটি, চিচিঙ্গা, মিষ্টি কুমড়া, ঝিঙ্গা, কচুর লতি, ধুন্দল, ঢেঁড়শ, লাউশাক, পালং শাক, লাল শাক, কলমি শাক, কচু শাকসহ বিভিন্ন শাকসবজিতে ভরপুর বাজার। সকাল থেকেই জমে উঠেছে বেচাকেনা। এর মধ্যে কাঁচামরিচ ৪০-৫০টাকা, আলু ২০-২৫ টাকা, টমেটো ৩৫ টাকা, গোল বেগুন ৪০টাকা, লম্বা বেগুন ৫০ টাকা, করলা ৭০ টাকা, কাঁচা পেঁপে ৪৫-৫০ টাকা, শসা ৩৫ টাকা, গাজর ৩০ টাকা, বরবটি ৭০ টাকা, চিচিঙ্গা ৭০ টাকা, কচুর লতি ৫০- ৬৫ টাকা, শালগম ৩৫-৪০টাকা কেজি দামে বিক্রি হচ্ছে। নতুন করে বাজারে উঠেছে সজনে ডাঁটা। বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকা কেজি দরে। পাতাকপির দাম স্থিতিশীল থাকলেও গত সপ্তাহের তুলনায় দাম বেড়েছে ফুলকপি ও ব্রোকলির। পাতাকপি আগের মতোই ৩০-৪০ টাকা পিস বিক্রি হলেও ফুলকপি ও ব্রোকলি ৫০-৫৫ টাকা পিস বিক্রি হচ্ছে। গত সপ্তাহেও এসব সবজি ৪০-৪৫ টাকায় পাওয়া গেছে। আকারভেদে প্রতি পিস লাউ ৫০০-৬০ টাকা পর্যন্ত দাম চাইছেন বিক্রেতারা। লাউশাক, পালং শাক, লাল শাক, কলমি শাক, কচু শাক, পুঁইশাক বিক্রি হচ্ছে ২০-৪০ টাকা আঁটি দরে। মসলার মধ্যে পেঁয়াজ ৪০-৫০ টাকা, রসুন ১১০-১২০ টাকা, দেশি আদা ৭০-৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। অন্যদিকে গত সপ্তাহের তুলনায় এ সপ্তাহে হালিপ্রতি ডিমের দাম বেড়েছে ২-৩ টাকা। সাদা ডিম পাইকারি বাজারে ক্রয়মূল্য ৩৪ টাকা ও খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৩৬ টাকা, হাঁসের ডিম পাইকারি বাজারে ক্রয়মূল্য ৬৫ টাকা ও খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকায়, দেশি মুরগির ডিম পাইকারি বাজারে ক্রয়মূল্য ৬৫ টাকা ও খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকায়। মুরগির খাবারের দাম বাড়ায় ডিমের দামেও এর প্রভাব পড়ছে। আরো বেড়েছে সয়াবিন তেল, খোলা লবণ, গোখাদ্য, মাছ। এই সব গ্রামিণ মানুষের মধ্যে এখন চিন্তার মূল বিষয় হচ্ছে দ্রব্য মূল্যের লাগামহীন দাম ।

সর্বশেষ - ঠাকুরগাঁও

আপনার জন্য নির্বাচিত

বীরগঞ্জ মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শরিফুল ইসলাম ”অবসরে”

ঠাকুরগায়ে মহিলা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী

বীরগঞ্জে আদি কুমের ডাঙ্গা শ্মশানঘাটের শিব মন্দির উদ্বোধন

বীরগঞ্জের জগদলে ফুটবল খেলা অনুষ্ঠিত

উত্তরণ সাংস্কৃতিক গোষ্ঠী ও পাঠাগারের উদ্যোগে কম্বল বিতরণ

ঠাকুরগাঁওয়ে বালিয়াডাঙ্গীতে বঙ্গবন্ধুর ১০৪ তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস পালিত

বীরগঞ্জে ভ্রাম্যমান আদালতে মাদক কারবারির কারাদণ্ড

বীরগঞ্জ মডেল স্কুলে অগ্নিকাণ্ডে ব্যাপক ক্ষতি

ঠাকুরগাঁওয়ে জেন্ডার, মানবাধিকার ও সুশাসন বিষয়ক সভা

আটোয়ারীতে পদ্মা সতেুর উদ্বোধন উপলক্ষে শোভাযাত্রা ও আলোচনাসভা